কবিতা

নাজমীন মর্তুজা

বসন্ত

বসন্তের কাঁটা কি সেখানে থমকে গেছে
যে সময়কে স্মৃতি বন্দি করে রেখে এসেছি
ঝাঁপি ভর্তি ফুল তার তলে দু-হাতের আবদার
আঙুল ছুঁয়ে, চোখের তারায় ঠোঁটের কোনে।

এই সেইবসন্ত, যে উৎসবে কিনেছিলে শর্ত ও শপথে
মেলার বাঁশির মত আনা কি দু আনায়
আরো কাছে চলে আসলাম
যত কাছে আমি আমার থাকি।

দিলে প্রেম ঋতু হিমশীতল সঙ্গম
তারপর ছুটতে থাকলো তোমার পিছু
অবাধ্য শাড়ির আঁচল
উড়ে যায় ফুলে উঠে
কোমড়ে পেঁচিয়ে সংহত হই।

ঋতু ধরা শেখালে খুব গোপনে নির্মাণ শিল্পে
হৃদয় রুয়ে তাতে বাগান করেছি
আসছে চন্দনা কাঠবেড়ালী প্রজাপতি
তারপর থেকে বসন্ত ঋতুকে বৈবাহিক মনে হয়
সহপুরুষের মত
ভয়হীন দ্বিধাহীন ফুটতে শিখলাম কৃষ্ণচূড়ার মত
কৌশল জেনে ফাল্গুন মাসে!

Related Posts

ফেরিওয়ালা

কী কী বহন করো ফেরিওয়ালা একটি পাখির ডাক ও ভোর? আগুনের চিৎকার বিষণ্ন শ্মশান কোলাহলআরও পড়ুন

ডায়েরি

বিভা আজ সারাদিন তোমার ডায়েরি পড়লাম প্রতিটি পাতায় লিখে রাখা নিজেকে শেষ করে দেওয়ার বিষাদআরও পড়ুন

কিছুটা ভাব সাবলীল সুখ

স্তন ছোঁবে খাজনা দেব না বলে যত অনুতাপ আগ্রাহ্য রইবো অফুরান, এই শহরে…. তারাগঞ্জ থেকেআরও পড়ুন

বসন্তের কোন ক্যালেন্ডার নেই

কিছু না করার ভয়াবহতায় আচ্ছন্ন আছি অনেকদিন তবে তোমাকে নিয়ে ভাবতে পারার তৃপ্তি শরীরের ছন্দেআরও পড়ুন

সুড়ঙ্গ লালিত সম্পর্ক

এক অগাধ সমুদ্র কল্পনা করতে গিয়ে সমস্ত কল ছেড়ে দিয়ে দেখেছিলাম ,এক নতুন বিদ্রুপ। আপাতআরও পড়ুন

আয়ত বাঁচা

ব্যথার জলে খেয়া ভাসিয়ে পৌঁছে গিয়েছি তোমার বুকের পারঘাটায় গোমতী ধলেশ্বরীর বাঁধ ভেঙে ভাঙা বেড়াআরও পড়ুন

একাকী ঠোঁট

বলেছিলে… ঠোঁটের একটা তেল ছবি তুমি শুরু করেছিলে… আসলে আর জানা হয়নি শেষ হয়েছিল কিনা…আরও পড়ুন

দহন

তোমার মন পেতে অনেক অভিনয় করতে হলো তাই বদলে নিয়েছি দিনলিপি অপ্রাপ্তি আর নির্লিপ্ততার ক্ষণআরও পড়ুন

টুকে নিচ্ছি একখন্ড সময়ের আলেখ্য

টুকে নিচ্ছি সাধনের ভাঁজে অমিমাংসিত প্রেম চলনহীন পা হড়কে যাচ্ছে আমার টুকে নিচ্ছি নতজানু হবারআরও পড়ুন

মন্তব্য বন্ধ