কবিতা

নাজমীন মর্তুজা

ফেরিওয়ালা

কী কী বহন করো ফেরিওয়ালা

একটি পাখির ডাক ও ভোর?

আগুনের চিৎকার বিষণ্ন শ্মশান
কোলাহল দিনের শুরু ও পতন?

তুমি তো সকাল-দুপুর-সন্ধ্যার ফেরিওয়ালা।

আচ্ছা…
তোমার কাছে পথের পাশের বয়ে যাওয়া
হাওয়া আছে?

তুলি ডোবাবার মতো সবুজ জঙ্গল
রাগী ধুলোর দৌড় আছে?

দুহাত জড়ো করে আঁকড়ে ধরবার
ভয় আছে?

ও ফেরিওয়ালা!
আচ্ছা তোমার কাছে
বট ঝুরির দোলনা আছে?

সাপুড়ের বিন…কড়ি ও মন্ত্র
আছে কি বিষণ্ন দুপুরের অপেক্ষা?

চুপি চুপি কুপি বাতির সোনাভান আসর…
আছে কি আশ্বিনের শিমের মাচা?

ভাঙা আঙিনায় ঝোলা লাউ বোলতার গুন গুন…
দুরূহ শব্দ ভার, মক্তবে কোরআন পাঠের সুর।

লোকগানের মতো ভারী নির্মল মেঠো পথ
বর্তমানের ফেরিওয়ালা তুমি…
তুমি সময়ের চটকদারি অন্তসারহীন
বিজ্ঞাপনের ফেরিওয়ালা!

তোমার ঝোলা ভরা ভাঙচুর, দুরাশা, সন্দেহ-ক্রোধ, বঞ্চনা-লোভ…
মতিভ্রম, ছলচাতুরী।

যাও যাও!
অন্যখানে অন্য মনে
আমার ঘামের ফোঁটায় জমিয়ে রাখা পয়সায়…
বর্তমানের বিদ্যুতের ঝুলন পূর্ণিমা
আমি কিনি না!

Related Posts

ডায়েরি

বিভা আজ সারাদিন তোমার ডায়েরি পড়লাম প্রতিটি পাতায় লিখে রাখা নিজেকে শেষ করে দেওয়ার বিষাদআরও পড়ুন

কিছুটা ভাব সাবলীল সুখ

স্তন ছোঁবে খাজনা দেব না বলে যত অনুতাপ আগ্রাহ্য রইবো অফুরান, এই শহরে…. তারাগঞ্জ থেকেআরও পড়ুন

বসন্তের কোন ক্যালেন্ডার নেই

কিছু না করার ভয়াবহতায় আচ্ছন্ন আছি অনেকদিন তবে তোমাকে নিয়ে ভাবতে পারার তৃপ্তি শরীরের ছন্দেআরও পড়ুন

সুড়ঙ্গ লালিত সম্পর্ক

এক অগাধ সমুদ্র কল্পনা করতে গিয়ে সমস্ত কল ছেড়ে দিয়ে দেখেছিলাম ,এক নতুন বিদ্রুপ। আপাতআরও পড়ুন

আয়ত বাঁচা

ব্যথার জলে খেয়া ভাসিয়ে পৌঁছে গিয়েছি তোমার বুকের পারঘাটায় গোমতী ধলেশ্বরীর বাঁধ ভেঙে ভাঙা বেড়াআরও পড়ুন

একাকী ঠোঁট

বলেছিলে… ঠোঁটের একটা তেল ছবি তুমি শুরু করেছিলে… আসলে আর জানা হয়নি শেষ হয়েছিল কিনা…আরও পড়ুন

দহন

তোমার মন পেতে অনেক অভিনয় করতে হলো তাই বদলে নিয়েছি দিনলিপি অপ্রাপ্তি আর নির্লিপ্ততার ক্ষণআরও পড়ুন

বসন্ত

বসন্তের কাঁটা কি সেখানে থমকে গেছে যে সময়কে স্মৃতি বন্দি করে রেখে এসেছি ঝাঁপি ভর্তিআরও পড়ুন

টুকে নিচ্ছি একখন্ড সময়ের আলেখ্য

টুকে নিচ্ছি সাধনের ভাঁজে অমিমাংসিত প্রেম চলনহীন পা হড়কে যাচ্ছে আমার টুকে নিচ্ছি নতজানু হবারআরও পড়ুন

মন্তব্য বন্ধ