নির্বাচিত কবিতা

নাজমীন মর্তুজা

কিছুটা ভাব সাবলীল সুখ

স্তন ছোঁবে খাজনা দেব না বলে
যত অনুতাপ
আগ্রাহ্য রইবো অফুরান,
এই শহরে….
তারাগঞ্জ থেকে ইকরচালি
দুপুর বাড়লে নসিমন স্ট্যাণ্ডে
দাবি – দাওয়া নিয়ে দাঁড়াবো…
কুকুর ছানাগুলোর জন্য রিলিফ দরকার।
ভাবছি পালাবো রংপুরে
পায়রাবন্দ গ্রামে…
দেহ ভাণ্ড অজ্ঞান অনিশ্চিয়তায় ভরা
ঝাঁকে ঝাঁকে বনটিয়া খুঁটছে ঠোঁট
ফাঁসি কাষ্ঠে ঝোলা স্তন
নীচের বধ্যভূমি লাঙল কষে …
কেবল তো একটা কাজই করেছি
দিন – রাত – সপ্তাহ – মাস
বছরের পর – বছর
খেলা….. খেলা…. খেলার লড়াই
তারা নিশ্চয় অন্ধকার পরিভ্রমণ করে
আমার কাছে চায় শুধু নিবেদন…..
নিবেদন….. আর নিবেদন।
ওরা বন্দুক লুকায় গিরীখাদে বারুদ ভেজায়
হয় রসোময় জলের উচ্ছ্বাসে।
আদর করে খোঁপা বেঁধে দেয়
শ্রোতা দেয় গোপনীতা দেয়
আহাল্লাদে ডাকে কুসুম
তারপর হয় কুসুম ফোঁটার কারিগর
ভ্রুণ হয় ঝোপে ঝাড়ে
খসে পড়ে, ঘাসে ঘাসে
পাটল মাটিতে আসমুদ্র হিমাচলে
গ্রীষ্মে ফোঁড়াগুলো ফেটে
রক্ত ঝরে বয়ে যায় ঋজু নদীর জলে
গত মাসে লাল হয়ে ভরে ছিল পাগলাপীর…..
স্টেশন আর সামাদের
চায়ের দোকানের চেয়ার…
বুকের পর্বতগুলো ফুলে
উঠলে বড় বাজারের কুকুরগুলো
প্রথম দেখায় অভিভূত হয়।
তারপর জমিতে ঢালে বীজ
স্বস্তিতে ঘুমায় পূর্বগেটের বস্তিতে।
ওরা হুমকি দেয় বাড়ি ভাঙ্গা হবে,
জমি ভাগা-ভাগী হবে
আস্থাবর সম্পত্তি নিলামে উঠবে..
কিন্তু আমি তো তৈরি নই
হিসাবে গরমিল করেছি
বাজারের বাৎসরিক লাভক্ষতি।
তবুও হালখাতা হবে।
অঙ্গহীন হাত নিয়ে
কি করে চাইবো ক্ষমা
তবে স্তন ছুঁয়ে থাক
চাইবো না অনুগ্রহ কিছুতেই
পােকা মাকড়ের কাছে নীরবতা শিখে
দেখে যাব দূরাগত
প্রাকৃতিক দৃশ্য।

Related Posts

ফেরিওয়ালা

কী কী বহন করো ফেরিওয়ালা একটি পাখির ডাক ও ভোর? আগুনের চিৎকার বিষণ্ন শ্মশান কোলাহলআরও পড়ুন

ডায়েরি

বিভা আজ সারাদিন তোমার ডায়েরি পড়লাম প্রতিটি পাতায় লিখে রাখা নিজেকে শেষ করে দেওয়ার বিষাদআরও পড়ুন

বসন্তের কোন ক্যালেন্ডার নেই

কিছু না করার ভয়াবহতায় আচ্ছন্ন আছি অনেকদিন তবে তোমাকে নিয়ে ভাবতে পারার তৃপ্তি শরীরের ছন্দেআরও পড়ুন

সুড়ঙ্গ লালিত সম্পর্ক

এক অগাধ সমুদ্র কল্পনা করতে গিয়ে সমস্ত কল ছেড়ে দিয়ে দেখেছিলাম ,এক নতুন বিদ্রুপ। আপাতআরও পড়ুন

আয়ত বাঁচা

ব্যথার জলে খেয়া ভাসিয়ে পৌঁছে গিয়েছি তোমার বুকের পারঘাটায় গোমতী ধলেশ্বরীর বাঁধ ভেঙে ভাঙা বেড়াআরও পড়ুন

একাকী ঠোঁট

বলেছিলে… ঠোঁটের একটা তেল ছবি তুমি শুরু করেছিলে… আসলে আর জানা হয়নি শেষ হয়েছিল কিনা…আরও পড়ুন

দহন

তোমার মন পেতে অনেক অভিনয় করতে হলো তাই বদলে নিয়েছি দিনলিপি অপ্রাপ্তি আর নির্লিপ্ততার ক্ষণআরও পড়ুন

বসন্ত

বসন্তের কাঁটা কি সেখানে থমকে গেছে যে সময়কে স্মৃতি বন্দি করে রেখে এসেছি ঝাঁপি ভর্তিআরও পড়ুন

টুকে নিচ্ছি একখন্ড সময়ের আলেখ্য

টুকে নিচ্ছি সাধনের ভাঁজে অমিমাংসিত প্রেম চলনহীন পা হড়কে যাচ্ছে আমার টুকে নিচ্ছি নতজানু হবারআরও পড়ুন

মন্তব্য বন্ধ